তুফানগঞ্জে কলেজেই
মদের আসর অধ্যক্ষের

তুফানগঞ্জে কলেজেই<br>মদের আসর অধ্যক্ষের
+

নিজস্ব সংবাদদাতা: কোচবিহার, ২৫শে সেপ্টেম্বর- এটা আমার খাদ্য তালিকার মধ্যে পড়ে। যখন থেকে চোখ খুলে যায় তখন থেকেই আমি খাওয়া শুরু করি চোখ বন্ধ হওয়া পর্যন্ত। আপনাদের কাছে যেটা মদ, আমার কাছে সেটা পরিস্রুত মিশ্র ফলের নির্যাস। মদ্যপান সম্পর্কে এই মন্তব্য একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানের। আর মঙ্গলবার এই ঘটনার সাক্ষী রইলেন ছাত্ররা। শিক্ষায় নৈরাজ্যের আরেক ছবি দেখল রাজ্য।  
ঘটনার সূত্রপাত, এদিন দুপুর নাগাদ তুফানগঞ্জ নৃপেন্দ্র নারায়ণ মেমোরিয়াল হাইস্কুলের ৪জন ছাত্র কারিগরি শিক্ষায় ভর্তির জন্য এদিন ফরম তুলতে যায় তুফানগঞ্জ আই টি আই কলেজে। কিন্তু ফরম তোলা তো দূরের কথা, তাদেরকে নিজের ঘরের বাইরে বসিয়ে রাখেন অধ্যক্ষ। প্রায় দুঘন্টা বসে থাকা এই ৪জন ছাত্র লক্ষ্য করে যে অধ্যক্ষ তাঁর নিজের ঘরে বসে সঙ্গীদের নিয়ে মদ্যপানে ব্যস্ত। প্লেটে সাজানো মাছ ভাজা। রয়েছে তাসের বান্ডিল ও বেশ কয়েকটি সিগারেটের প্যাকেট। 
স্তম্ভিত ছাত্ররা যোগাযোগ করে তুফানগঞ্জ মহাবিদ্যালয়ের সিনিয়রদের সঙ্গে। কলেজের বেশ কিছু ছাত্রদের নিয়ে তারা হাজির হয় এই আই টি আই কলেজে। তারা ঘরে ঢুকলেও নির্বিকার অধ্যক্ষ এবং তার সঙ্গীরা তাদের সামনেই রীতিমতো মাছ ভাজা সহযোগে মদ্যপানে ব্যস্ত তখনও। প্রশ্ন করা হলে উত্তেজিত অধ্যক্ষ উইলিয়াম সোরেন অকপটে বলে যান মদ্যপান সম্পর্কে তাঁর উপলব্ধি। তিনি বোঝাতে থাকেন কলেজের মধ্যে অধ্যক্ষের ঘরে বসে মদ্যপানের মধ্যে অন্যায় কিছু নেই। এমন বক্তব্যে ছাত্ররাও উত্তেজিত হয়ে পড়েন।
ঘটনায় এদিন উত্তেজনা ছড়ায় আই টি আই কলেজ চত্বরে। বিক্ষোভ দেখাতে থাকে ছাত্রছাত্রীরা। পরবর্তীতে পুলিশি হস্তক্ষেপে তিনি ছাড়া পান। এই ঘটনায় নিন্দার ঝড় উঠেছে জেলার শিক্ষা মহলে। ওয়েবকুটার কোচবিহার জেলা সম্পাদক দেবাশিস দত্ত এদিন বলেন, এই ঘটনা শিক্ষক সমাজের লজ্জা। যখন এই রাজ্যে শিক্ষকের বদলে বুলেট জুটছে ছাত্রদের তখনই এই ঘটনা শিক্ষাক্ষেত্রে নৈরাজ্যের আরেক রূপ। 

 

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement