বীরভূমে শিল্প স্থাপনের দাবি
গুরুত্ব পাবে লঙ মার্চে: মনসা হাঁসদা

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৩ই সেপ্টেম্বর , ২০১৮

রামপুরহাট, ১২ই সেপ্টেম্বর— উগ্র হিন্দুত্ববাদীদের মদতে এখন জাতপাত নিয়ে চলছে মেরুকরণের রাজনীতি। তাদের আক্রমণে দলিত, আদিবাসী ও সংখ্যালঘুদের জীবন-জীবিকা বিপন্ন। কর্পোরেট মালিকদের স্বার্থ দেখছে কেন্দ্রের বি জে পি সরকার। শ্রমিক কৃষকদের অবস্থা শোচনীয়। কৃষিঋণ মকুব হয়নি। বুধবার রামপুরহাটে সাংবাদিক বৈঠক করে একথা জানান সি পি আই (এম) বীরভূম জেলা সম্পাদক মনসা হাঁসদা।

তিনি বলেন, পুঁজিপতিদের কোটি কোটি টাকা ঋণ ছাড় দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে রাজ্যের তৃণমূল সরকারও একই নীতি নিয়ে চলছে। তারাও প্রতিযোগিতামূলক সাম্প্রদায়িক ধর্মীয় রাজনীতি করছে সরকারি মদতে। নেই আইনের শাসন। প্রাকৃতিক সম্পদ থেকে পঞ্চায়েত— তোলাবাজি আর লুটের আখড়ায় পরিণত করেছে। পঞ্চায়েত নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করে জবর দখল করা হয়েছে। এমনকি নির্বাচনে যে পঞ্চায়েতে বিরোধীরা সংখ্যাগরিষ্ঠ, সেখানে মারধর অপহরণ করে প্রধান পদ দখল করছে তারা। এমনকি কর্মাধ্যক্ষের পদ নিয়েও নিজেদের মধ্যে খুনখুনি করছে। এর বিরুদ্ধে এবং রাজ্যে শান্তিশৃঙ্খলা ও গণতন্ত্র ফেরানোর দাবি উঠেছে। ৩০শে সেপ্টেম্বর থেকে ২রা অক্টোবর বীরভূম জেলায় প্রতিবাদী মানুষের ২০০ কিমি লঙ মার্চ হবে।

মনসা হাঁসদা বলেন, বি জে পি এবং তৃণমূলী স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে, তাদের অপকীর্তির কথা মানুষের সামনে তুলে ধরতেই এই লঙ মার্চ। কারণ বাজারি সংবাদমাধ্যম শ্রমজীবী মানুষের এই কষ্টের কথা তুলে ধরে না। লঙ মার্চের দাবিগুলির মধ্যে রয়েছে, বোলপুরের শিবপুর মৌজায় শিল্প স্থাপন, জেলায় বালি মাফিয়ারাজ বন্ধ করা, তোলাবাজি বন্ধ করা, আবদারপুর, মুরারই, নলহাটি, রামপুরহাট, সাঁইথিয়ায় রেলের ফ্লাইওভার নির্মাণ প্রভৃতি। দাবিগুলিকে সামনে রেখে এবং ‘জাগো, জাগাও, এগোও’ এই আহ্বানে ছটি সংগঠনের মিলিত লঙ মার্চ শুরু হবে ৩০শে সেপ্টেম্বর। লোহাপুর, দুবরাজপুর, রাজনগর ও ময়ূরেশ্বর থেকে শুরু হবে চারটি লঙ মার্চ। লোহাপুরে বৃন্দা কারাত, দুবরাজপুরে অমিয় পাত্র, রাজনগরে দেবলীনা হেমব্রম এবং ময়ূরেশ্বরে আভাস রায়চৌধুরি লঙ মার্চের উদ্বোধন করবেন। চারটি লঙ মার্চই ২রা অক্টোবর সিউড়িতে কেন্দ্রীয় সমাবেশে এসে মিশবে। সেখানে বক্তব্য রাখবেন সি পি আই (এম)রাজ্য সম্পাদক সূর্য মিশ্র। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে ছিলেন পার্টিনেতা সঞ্জীব বর্মণ ও সঞ্জীব মল্লিক।

এদিকে লঙ মার্চকে সার্থক রূপ দিতে বীরভূম জেলাজুড়ে চলছে জোর প্রচার। তারই অঙ্গ হিসাবে বুধবার বীরভূমের লোহাপুরে সভা হয়। এই কর্মসূচিকে সফল করার আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য রাখেন কৃষকনেতা মনসা হাঁসদা, জুরান বাগদি, দুলাল সরকার প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন শেখ বদীউজ্জামান।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement