মহার্ঘভাতা নিয়ে রাজ্যকে
হলফনামা জমা দিতে বলল স্যাট

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৩ই সেপ্টেম্বর , ২০১৮

কলকাতা, ১২ই সেপ্টেম্বর— মহার্ঘভাতা মামলায় রাজ্য সরকারকে হলফনামা জমা দিতে বলল স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইব্যুনাল (স্যাট)। এই মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশের পর স্যাট পুনরায় মামলার শুনানি গ্রহণ করবে। বুধবার অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি রঞ্জিতকুমার বাগ এবং অবসরপ্রাপ্ত সরকারি আধিকারিক সুবেশ দাসকে নিয়ে গঠিত স্যাট বেঞ্চে মহার্ঘভাতা সংক্রান্ত মামলাটির উল্লেখ করা হয়। এরপরই মামলাটির শুনানির জন্য রাজ্য সরকারকে ২৪শে সেপ্টেম্বরের মধ্যে হলফনামা জমা দেবার নির্দেশ দেয় স্যাট। এই হলফনামা জমা পড়ার পর আবেদনকারীরা ৩রা অক্টোবর তাদের উত্তর জমা দেবে। মামলাটির শুনানি শুরু হবে ৪ঠা অক্টোবর।

গত ৩১শে আগস্ট কলকাতা হাইকোর্ট তার নির্দেশে বলেছে, মহার্ঘভাতা রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের আইনসঙ্গত পাওনা। অল ইন্ডিয়া কনজিউমার প্রাইস ইনডেক্স (মূল্য সূচক) অনুযায়ী রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের সমহারে বেতন পাবেন কিনা এটা ঠিক করবে স্যাট। এছাড়া এরাজ্যের কর্মচারী যাঁরা দিল্লির বঙ্গভবনে এবং চেন্নাইয়ে যুব আবাসে কাজ করেন তাঁরা কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের মতো সমহারে মহার্ঘভাতা পেয়ে থাকেন। হাইকোর্টের বিচারপতিরা তাঁদের নির্দেশে বলেছেন, স্যাট-কে ঠিক করতে হবে এরাজ্যের কর্মচারীরা দিল্লি ও চেন্নাইয়ে কর্মরত এরাজ্যের কর্মচারীদের মতো সমহারে মহার্ঘভাতা পাবেন কিনা। এই মহার্ঘভাতা কর্মচারীরা কী ভাবে পাবেন তাও ঠিক করবে স্যাট।

বকেয়া মহার্ঘভাতার আবেদন নিয়েই প্রথমে রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা স্যাটে মামলা দায়ের করেছিলেন। ২০১৭সালের ১৬ই ফেব্রুয়ারি স্যাটের তৎকালীন বিচারক অনুপকুমার চন্দ্র এবং অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অমিত তালুকদারের বেঞ্চ তাঁদের নির্দেশে বলেছিলেন, মহার্ঘভাতা দয়ার দান, সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘভাতার কোন আইনী অধিকার নেই, এই ভাতা নিয়ে কর্মচারীরা কোন দাবি করতে পারেন না। এই রায়ের বিরুদ্ধে কর্মচারীরা কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন। কলকাতা হাইকোর্ট স্যাটের এই রায়কে সম্পূর্ণ খারিজ করে বলেছে, মহার্ঘভাতা সরকারি কর্মচারীদের আইনসঙ্গত প্রাপ্য। এই প্রাপ্য কীভাবে মেটানো যায় সেটাই দ্রুত ঠিক করবে স্যাট। এব্যাপারে হাইকোর্ট স্যাটকে সময় বেধে দিয়ে বলেছে আগামী ২মাসের মধ্যে মামলার নিষ্পত্তি করতে হবে।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement